Home » অন্যান্য » সরকারী চাকরি ও সরকারী প্রতিষ্ঠান

সরকারী চাকরি ও সরকারী প্রতিষ্ঠান

584 বার পঠিত

সরকারি চাকরি যেন সোনার হরিণ । সরকারি চাকরি পাওয়া মানেই সোনার খনির সন্ধান পাওয়া । চাকরি পাইলেই রাতারাতি কোটিপতি । সরকারী চাকরি পাওয়ার জন্য যে লক্ষ লক্ষ টাকা ঘুষ আদান প্রদান হয় সেই কথা কারও অজানা না । এমন মানুষ খুব কম আছে যে লক্ষ টাকা ঘুষ না দিয়ে সরকারী চাকরি পেয়েছেন । চাকরি পাওয়ার পর সুদে-আসলে সব টাকা আবার ঘুষ নিয়ে তুলে নেন । টাকার জোরে ঘুষ দিয়ে চাকরি পেয়ে যায় অদক্ষ,অসৎ লোকেরা । যে কারণে আজ সরকারী প্রতিষ্ঠান গুলোর দুরবস্থা । দুর্নীতির জন্য বছর বছর লোকসান দিচ্ছে । সৎ, দক্ষ-প্রতিভাবান লোকেরা চাকরির আশায় আশায় ঘুরে বেড়ায় । তাদের অপরাধ একটাই ঘুষ দেয়ার জন্য বাপের টাকা নেই । অবশেষে তারা চাকরি করেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে । সরকারী চাকরিতে নিয়োগের নামে সেই ঘোষণা প্রকাশ হয় সেই ঘোষণা শুধু নামেমাত্র । পরীক্ষায় তারাই পাশ করে যাদের নেতাদের সুপারিশ আছে । সেই সুপারিশের জন্য দিতে হয় ঘুষ । সব মিলিয়ে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ একটা অনেক বড় বানিজ্য বলে আমার মনে হয় । সরকারি চাকরিতে নিয়োগের জন্য ঘুষ লেনদেন চলবে আর কতকাল ? সরকারি প্রতিষ্ঠানের পিয়ন,দারোয়ান থেকে উপরস্থ কর্মকর্তা সবাই ঘুষ নেয় । তারা সবাই কোটিপতি । জনগনের সেবা করা তাদের কাজ,সেবা তারা করেন ঠিকই তার জন্য তাদের পকেটে কিছু টাকা দিতে হয় । টাকার জন্য তারা কখনো কখনো দেশবিরোধী কাজেও লিপ্ত হন । চোখ বন্ধ করে সাইন করে দেন অনেক ফাইলে । আর এই কারণে যে সাইকেল ঠিক মতো চালাতে পারেনা সে বাস চালাচ্ছে । যে খুনি সে ঘুরে বেড়াচ্ছে,দোষ না করেও ভালো মানুষ জেল খাটছে । সরকারি প্রতিষ্ঠানে এই সব অনিয়ম কী কোনদিন বন্ধ হবে না ?

মন্তব্য
  • Dakua এপ্রিল 19, 2012 at 9:49 পূর্বাহ্ন

    সবাই ঘুষ খায়! এটা ঠিক নয়! সমাজে যেমন খারাপ মানুষের দাপট বেশী,ভালো মানুষ চুপ হয়ে থাকে! ঠিক তেমন ঘুষখোরদের শব্দ বেশী শুনা যায়! ভালোরা চুপ চাপ কাজ করে, যা বুঝা যায় না! তবে অনুধাবন করা যায়!

  • Mohsin Alam এপ্রিল 19, 2012 at 8:49 পূর্বাহ্ন

    সরকারী কর্মকর্তা/কর্মচারীদের খামখেয়ালী দিন দিন বেড়েই চলছে। তারা নিরীহ মানুষকে জিম্মি করে ঘুষ দিতে বাধ্য করে। তাদের সব কিছু এক রকমের অত্যাচার। এই অত্যাচার বন্ধ করা প্রয়োজন,কিছু একটা করতে হবে।

  • সাজ্জাদ হোসাইন এপ্রিল 18, 2012 at 11:15 অপরাহ্ন

    রাষ্ট্র যারা চালাচ্ছে তারা যখন চাইবে তখন হয়তো বন্ধ হয়ে যাবে সব অনিয়ম।কিন্তু তারা চাচ্ছে না।তাই এখন অনেক মানুষ চাইছে এবং এক হচ্ছে যেদিন সবাই এক কাতারে দাঁড়াবে সব অন্যায় এর বিরুদ্ধে সেদিন সত্যিকারের পরিবর্তন আসবে।

  • মিজান আব্দুর রশিদ এপ্রিল 18, 2012 at 11:14 অপরাহ্ন

    রফিকুল ইসলাম সাগর,আপনাকে ধন্যবাদ এমন একটা সময়োপযোগী বিষয় নিয়ে লেখার জন্য। আমার মনে হয়,এসব দুর্নীতি থেকে মুক্ত তখনি হওয়া যাবে,যখন পুরো দেশটাকে দুর্নীতিবাজ রাজনীতিবিদদের হাত থেকে মুক্ত করা যাবে।

  • Al Masud এপ্রিল 18, 2012 at 7:18 অপরাহ্ন

    ধন্যবাদ রফিকুল ইসলাম সাগর “সরকারী চাকরি ও সরকারী প্রতিষ্ঠান” বিষয়টি লেখার জন্য।
    আর সেই সুযোগে অধিকাংশ বেসরকারী প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানীগুলো খুব কম বেতন দিয়ে কর্মী নিয়োগ করছে। কোন শ্রম আইন মানছে না। কর্মীদের সারা বছরেও ছুটি দেয়না। মালিকপক্ষরা ইচ্ছামত সুবিধা ভোগ করে। অনেক নামকরা বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর অবস্থা ‘বাহিরে ফিটফাট ভিতরে সদরঘাট’। বছর-বছর পার হয় কিন্তু কর্মীদের পদোন্নতি হয়না; বেতন বাড়েনা ইত্যাদি সমস্যায় জর্জরিত।

    • রফিকুল ইসলাম সাগর এপ্রিল 18, 2012 at 7:34 অপরাহ্ন

      আপনাকেও ধন্যবাদ আপনার মতামত প্রদানের জন্য । জানি আমাদের শত লেখা লেখির পরেও কোনও কিছুর পরিবর্তন হবে না । সব কিছু যেমন আছে তেমনই থাকবে । আমরাও সব কিছু মেনে নিয়েছি আর এভাবেই চলছি । তারপরেও আশা আছে । সবার প্রতিবাদ করা প্রয়োজন ।

      • বদলে যাও বদলে দাও এপ্রিল 18, 2012 at 10:57 অপরাহ্ন

        রফিকুল ইসলাম সাগর সংগ্রমী চেতনার মানুষরা কখনো হতাশ হয় না। আপনার লেখায় কোথাও কারও কোন প্রয়োজন বা উপকারে আসবে না এটা কখনো বলা যায় না। পৃথিবীর কোন শুভ চেষ্টা বৃথা যায় না। সেটা আগে হোক বা পরে হোক। আপনি কাদের জন্য কথা বলছেন সেটাই মূল বিষয়। আপনি খেয়াল করে দেখন NAZNIN JAHAN নামে একজন প্রবাসী বোন সেই ১৫ দিন আগের ফকির রানা রায়হানের একটি পেস্ট পড়ে তাকে সম্মান জানাতে খুঁজছেন। উনি তো আর্কাইভ থেকে এটা পড়েছেন। এখন হতাশ হবার সময় নয়। প্রস্ততির সময়। আমরা হেরে যাব না, কখনোই না। আমাদের প্রজন্ম হাল ধরে না থাকতে পারলে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম সেই দায়িত্ব নিবে। আমরা এইটুকু দায়িত্ব পালন না করলে ওরা আমাদের স্বার্থপর, অকৃতজ্ঞ প্রজন্ম বলে চিহ্নিত করবে।

        • Mohsin Alam এপ্রিল 19, 2012 at 8:46 পূর্বাহ্ন

          এ দেশে যারা প্রতিবাদ করে তাদের পেতে হয় শাস্তি,যারা অপরাধী তারা সমাজের বড় বড় মানুষ । প্রতিবাদীদের সাথে কেউ থাকেনা,অপরাধীদের সাথেই সবাই থাকে। যারা অন্যায় অনিয়মের প্রতিবাদ করেছে,প্রতিবাদ করতে গিয়েছে তাদের হত্যা করা হয়েছে। সেই হত্যার বিচারও হয় না।

  • Nasrul Islam Ripon এপ্রিল 18, 2012 at 5:43 অপরাহ্ন

    দুই নেত্রী, দুই দল বাংলাদেশকে ঘুষখোরদের দেশ বানিয়েছেন । দুর্নীতিতে আমরা বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হই এদের শাসনামলেই। একদল ক্ষমতায় গেলে আরেক দলকে শুধু হাকডাক ও ভয় দেখায়, বিচারের কোন পদক্ষেপনেয় না । বিচার হয়না। নিবে কেন ঘুষখোররা যে দুই দলেই আছে…… । সবাব় আগে প্রয়োজন দুই নেতার পরিবর্তন । প্রয়োজন নতুন রাজনৈতিক দলের ।

© বদলে যাও, বদলে দাও!