Home » ইভটিজিংমুক্ত বাংলাদেশ চাই » সামজিক আন্দোলনের বিকল্প নেই

সামজিক আন্দোলনের বিকল্প নেই

2,118 বার পঠিত

পৃথিবীতে যত ধর্মের প্রচলন আছে সবকটির উদ্দেশ্য একটাই শান্তি । যদিও ধর্ম দিয়ে কতটুকু শান্তি আনা যায় এ নিয়ে আজকাল অনেক বিতর্ক হচ্ছে । ইভটিজিং এর মত ঘটনাকে অনেকে ধর্মহীন লোকেদের কর্ম বলছে । যদিও বখাটেদের  একটা ধর্ম পরিচয় আছে তারপরেও তাদের বখাটেপনার বন্ধ না হওয়ার পিছনে কি কারন থাকতে পারে তা আমাদের সবাইকে আবার নতুন করে ভেবে দেখা দরকার । আসলে সুন্দরী রমনীদের দেখে আনন্দিত হওয়া একটি অতি সাধারন ঘটনা । কিন্তু তাদের উত্তক্ত করার মানসিকতা খুব কম মানুষের মাঝেই থাকে । আমাদের সমাজে আমরা সবসময় এজন্য পুরুষদের দোষ দিয়ে থাকি কারন অপরাধটা পুরুষেই করে । কিন্তু একটা কথা আছে “এক হাতে তালি বাজে না “ । নারীদের দোষ ও কম নয় তারা যদি পুরুষদের আকর্ষন করার জন্য ড্রেসআপ করে তাহলে বখাটেদের দোষ দিয়ে আর লাভ কি ? আমার এ কথায় দু-ধরনের প্রতিক্রিয়া হতে পারে একধরনের প্রতিক্রিয়া হতে পারে তারমানে আমাদের মেয়েদের স্বাধীনভাবে সাজ-গোজ করে ঘুরে বেড়ানোর অধিকার নেই । আর তারা সাজ-গোজ করলেই পুরুষ আকর্ষিত হবে কেন ? যদি হয়ও তাহলে পুরুষদের আচরন মার্জিত হওয়া উচিত । আরেকটি প্রতিক্রিয়া হতে পারে মেয়েরা পুরুষদের তুলনায় সাজ-গোজ বেশি করবে কেন ? তারা কি পুরুষদের আকর্ষিত করার তাড়না বেশি অনুভব করে ? তাহলেতো মেয়েরা যা ডিজার্ভ করে তাই পাচ্ছে ।

আসলে এখানে ব্যাপারটা মোটেই সাজ-গোছের ব্যাপার নয় ব্যাপারটা হল শক্তির । কোনদিন কোন কুংফু-কারাতে জানা মেয়েদের ইভটিজিং এর বিচার চাইতে দেখেছেন ? আসলে এই কথাটা একটু মজা করার জন্য বললাম । প্রকৃতিগতভাবেই মেযেরা শারীরিকভাবে একটু দূর্বল এবং তাদের এই দূর্বলতাই তাদের নানামুখী নির্যাতনের শিকারের কারন । এই পৃথিবীতে একমাত্র সবলরাই টিকে থাকতে পারবে । এটাই প্রকৃতির নিয়ম । উদাহরন স্বরুপ দেখেন যেসব মেয়েদের পিতা বা পরিবার সমাজের উচ্চবর্গীয় মানে এমপি,মিনিস্টার,চেয়ারম্যান অথবা প্রশাসনিক কর্মকর্তা যেমন পুলিশ বা সামরিক বাহিনীতে কর্মরত তাদের পরিবারের মেয়েদের  উত্তক্ত করার ঘটনা অত্যন্ত কম । যাই হোক যারা ইভটিজিং এর শিকার হয় তাদের কিভাবে রক্ষা করা যায় এ ব্যাপারেই  এই ওয়েবসাইটটি খোলা হয়েছে । সামাজিক আন্দোলনের কথা আনিসুল হক স্যার বলছেন আমি মনে করি এটা খুবই ফলপ্রসু হবে যদি সঠিক আন্তরিকতা নিয়ে আন্দোলনকে বেগবান করা যায় । এর সফলতার জন্য যত বেশি সম্ভব আন্দোলনকারীর সংখ্যা বাড়ানো যায় ততই মঙ্গল । সামাজিক যোগাযোগের সাইট ফেইসবুকের মাধ্যমে এধরনের কার্যকর সমাজকর্মীর সংগ্রহ করা বেশি কষ্টকর হবে না । যদি আমরা আন্দোলন কারীর সংখ্যা দিন দিন বাড়াতে পারি তাহলে ইভটিজিং এর মত অপরাধ আমাদের সমাজ থেকে চলে যাবে বলে আমার বিশ্বাস । প্রত্যেক মানুষের ভিতরে একটি দলবদ্ধভাবে বাচার চেতনা কাজ করে (অবচেতনভাবেই) ।

এই আদিম হাতিয়ারই হবে ইভটিজিং বিরোধী আন্দোলনের প্রধান হাতিয়ার ।

বি:দ্র: প্রটেস্টার সংগ্রহের পদক্ষেপের মধ্যে মসজিদের ইমাম সাহেবদের(নামায পড়ানো ছাড়া ওদের আর কোন কাজ নেই তাই সারাদিন ফ্রি থাকে) অন্তর্ভুক্ত করতে পারলে দ্রুত কার্যসিদ্ধি হতে পারে ।

মন্তব্য
  • ahmad4252@gmail.com ডিসেম্বর 10, 2011 at 12:43 পূর্বাহ্ন

    This is a story about a king who was very rich and famous. All the Citizen of his kingdom was very happy. Saitan became very angry and he has sent his one of the follower (IMF) to that kingdom. Saitan said to his follower, be very good and give them lots of money and wealth, give them unlimited promises but keep a hidden condition. IMF went to the king and say: Hello great king, I am from IMF kingdom, My bosses are very glad to see that your citizens are happy, that’s why we do want to give you unlimited money and wealth. We will make all of your country people very happy, they will be very wealthy.
    The king asks the IMF: is it unconditional or you do have condition?
    IMF Says: It is almost unconditional but we do have a small request.
    The king again asks the IMF: What is your request?
    IMF Says: We will give you two/three very obedient literate unpaid servants, they will not take any salary from you, and they will eat their own food; manage everything from their own money.
    The king became very happy and says: very good, please bring them to my kingdom; I will do everything for them. Please disclose their names, so that I can arrange their visas.
    Than IMF says: We will give you a Finance Advisor (Mr. Moshior Rahman ) , Finance Minister ( Mr. Abul Mal Abdul Muhit) and Central Bank Governor ( Mr. Atiur Rahman) .
    The king become very angry and tell the IMF, leave my kingdom now without waiting a minutes, I am not Shake Hassina, I am thinking for my Kingdom and citizens. You have pronounced the names of the three killers; it will be a bad effect in my kingdom. If I bring them to my kingdom they will kill my entire Citizen.

    • mirza ডিসেম্বর 12, 2011 at 8:38 অপরাহ্ন

      ভাল গল্প ।। আওয়ামীলীগকে অভিনন্দন দেশে বোমা হামলা বন্ধে সফলতার জন্য ।

  • ahmad4252@gmail.com ডিসেম্বর 8, 2011 at 12:18 পূর্বাহ্ন

    Dear Obeidul Kader,
    You are the 1st minister for Bangladesh who says “I am not a minister for AL but I am a minister for Bangladesh”. We say, Brother Obeidul Kader, we are with you 160 million Bangladeshi. We are not from AL/BNP/Jamat/ML or any other party but we are Bangladeshi. We congratulate you, the Bangladeshi Minister.
    During last 40 years, we have seen the AL ministers, BNP ministers or other party Ministers, 1st time after 40 years you are the Bangladeshi minister.
    All of a sudden I have seen a slogan “ Bodle jao, bodle dao” , we thought that we are the some few people who changed themselves, but we have seen you have also changed yourself. This is the start. We will see more and more minister will come from Bangladeshi national. We started to change; we will see the changes every day. May Allah bless you, May Allah bless all the Bangladeshi.

    • mirza ডিসেম্বর 12, 2011 at 8:39 অপরাহ্ন

      বদলে যাওয়ার মিছিলে ওবাইদুল কাদেরকে অভিনন্দন ।

  • Noman Hossain ডিসেম্বর 7, 2011 at 9:44 পূর্বাহ্ন

    It’s greatly true. Every person of a society (from family to national and even in international) should take the proper initiative about it. Thanks for this writing. Thanks a lot to Prothom Alo’s bodlejaobodledao initiatives. All the best.

    • mirza ডিসেম্বর 12, 2011 at 8:40 অপরাহ্ন

      আপনাকে স্বাগতম ।

  • Dakua ডিসেম্বর 5, 2011 at 9:43 পূর্বাহ্ন

    হ্যাপি ফেস/ বখাটে কারা! আমার আপনার পাশেরই নয় কি? কেন বখাটে? সমাজ/রাষ্ট্র/রাজনীতি তাদেরকে পৃষ্ঠপোষকতা করছে নয় কি? তাহলে বখাটে থেকে পরিত্রাণ পাওয়া এত সহজ ??

    • mirza ডিসেম্বর 12, 2011 at 8:41 অপরাহ্ন

      বখাটেরা আর কেউ নয় …..আমরাই ….আমাদের আশে-পাশের মানুষেরাই ।। তাইতো চলুন বদলে যাই এবং বদলে দেই ।

  • Happy_face ডিসেম্বর 4, 2011 at 11:39 অপরাহ্ন

    আমি মনে করি সবার আগে আমরা প্রত্যেকে নিজেরাই নিজেদের বদলাতে হবে । আর এভাবে বদলাতে বদলাতে একদিন বখাটেরা হাতেগোনা কয়েকজন হয়ে যাবে আর তখন সমস্যাটা খুব সহজে সমাধান করা যাবে কারন বদলে যাওয়া আমরা যে অনেক।

    • mirza ডিসেম্বর 12, 2011 at 8:41 অপরাহ্ন

      সত্যি কথা ।

  • pijush ডিসেম্বর 4, 2011 at 10:39 অপরাহ্ন

    ভাই আপনার সাথে আমি কিছুটা অমত। আপনি গাছের গোরা ধরে টান না মেরে আগা ধরে টান মারছেন। আমার মনে হয় সবার আগে সবাইকে মন-মানসিকতার পরিবর্তন করা দরকার।

    • mirza ডিসেম্বর 12, 2011 at 8:44 অপরাহ্ন

      তাতো বটেই ।। মানসিকতার পরিবর্তন নিশ্চয় আমাদের আচরনেই প্রকাশিত হবে ।। তই নয় কি ?….. মানসিকতার জন্য কোন আঈন নেই কিন্তু আচরনের জন্য আঈন আছে ।। আশা করি বুঝতে পেরেছেন ।

  • mirza ডিসেম্বর 1, 2011 at 1:45 অপরাহ্ন

    প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার এবং মানসিকতার পরিবর্তন ই বদলে যাও বদলে দাও স্লোগানের সঠিক স্বার্থকতা ।

  • Jagroto Jonota নভেম্বর 30, 2011 at 6:03 অপরাহ্ন

    @মির্জা ভাই, আপনার সাথে আমি একমত। কিন্তু মাওলানা সাহেবরাতো এটা মানতে নারাজ, ওনারাতো আবার লাঠিসোঠা নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়বেন। আসুন এর বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলি।

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 6:07 অপরাহ্ন

      ওইগুলা তো আমেরিকার চর। ওদের কথা বাদ দেন।

    • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 6:16 অপরাহ্ন

      আসলে রাজনৈতিক এবং খানকা ভিত্তিক মাওলানারাই যত নষ্টের মূল । তারা সুশাসন চায় না তারা চায় তাদের নেতাদের বা হুজুরের উচ্চাসন ।

      • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 6:21 অপরাহ্ন

        @ইকবাল ভাই. হাছা …তবে আমেরিকার চর হওয়ার যোগ্যতা ওদের কোথায় ? ওদেরকে বুদ্ধীপ্রতিবন্ধী অথবা অহংকারী বলা যায় ।

        • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 6:26 অপরাহ্ন

          ঠিক বলেছেন। ওরা যদি বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী না হতো তাহলে আমেরিকা ওদেরকে দিয়ে এসব করাতে পারতো না। কথায় আছে না বোকা হুজুরের চেয়ে বুদ্ধিমান শয়তান ভালো।

  • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 5:47 অপরাহ্ন

    এখানে আরেকটি ব্যাপার নারী-পুরুষ পরস্পরকে আকর্ষিত করার চেষ্ঠা করবে এবং এটাই স্বাভাবিক । পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় নারীরা যেভাবে ইভটিজিং এর শিকার হয় একই রকম ভাবে নারীতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা হলে কে জানে পুরুষরাই হয়ত এর শিকার হতো । অপরাধ করা মানুষের স্বাভাবিক প্রবনতা । এ সমস্যার আরেকটি সমাধান হতে পারে সমাজে নারী-পুরুষে সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা করা । যেটি প্রাশ্চাত্য সমাজে দেখা যায় এবং এর পিছনে প্রযুক্তির অসামান্য অবদান অনস্বীকার্য । নারী-পুরুষের কর্ম পদ্ধতি যত গায়ের শক্তি নির্ভরতা থেকে কমে বুদ্ধি-ভিত্তিক পথে অগ্রসর হতে থাকবে ততই নারী-পুরুষের বৈষম্য কমতে থাকবে । এ ক্ষেত্রে প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার ই হতে পারে নারী-পুরুষের সমতা প্রতিষ্ঠার শ্রেষ্ঠ হাতীয়ার । আর সমঅধিকার প্রতিষ্ঠিত হলে ইভটিজিং লেজ তুলে পালাবে ।

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 5:59 অপরাহ্ন

      ঠিক বলেছেন। সমাজের সব কিছুতে সবার সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

  • shakila নভেম্বর 30, 2011 at 5:45 অপরাহ্ন

    Apni ja balechen ata asolai thik.Amra sudu ugrotakei smart bali.Are sab meyerai chay tar gopon soungorgo prokas karte.Theken na borkha parleo taid borkha pare.Ata bando hok thekben sab thik haya gese.

    • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 5:48 অপরাহ্ন

      একবারে সত্যি কথা । ধন্যবাদ

  • Jagroto Jonota নভেম্বর 30, 2011 at 5:36 অপরাহ্ন

    @ফাহাদ। একজন বাঙ্গালী হিসেবে আমাদের উচিত সবসময় লুঙ্গি পরা, আমরা কেন প্যান্ট পরি? এটাতো ওয়েষ্টার্ণ পোশাক। ওরা জাতি হিসেবে সভ্যতার শিখরে অবস্থান করছে। হয়তো বলতে পারেন ওরা বি-ধর্মী, শুনুন ওরাও কিন্তু আপনাকে আমাকে তাই মনে করে। আরে, আগে তো মানুষ হই, পরে ধার্মিক হওয়া যাবে – “দৃষ্টিভঙ্গি বদলান, জীবন বদলে যাবে”

  • shakila নভেম্বর 30, 2011 at 5:22 অপরাহ্ন

    Poshak ashak abong chalchalone shalinota thakle eve teasing onektai kambe. Thachara dharmio mullobod atea theke protikarer annotomo upay.

    • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 5:30 অপরাহ্ন

      অবশ্যই । তবে একটা কথা মূল্যবোধের কোন ধর্ম নেই কেননা দেখেন সব ধর্মই চুরি,ডাকাতি,মিথ্যাকে অপরাধ বলে । মূল্যবোধ হলো শিক্ষার একটা চলমান ফলাফল । সেটা ধর্মীয় আঈনের প্রতি শ্রদ্ধায় হোক আর রাস্ট্রীয় আঈনের প্রতি শ্রদ্ধায় ।

      • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 5:41 অপরাহ্ন

        আমাদের দেশে যে শিক্ষাব্যবস্থা চালু আছে তার চলমান ফলাফল খুব খারাপ। কিশোর বয়স থেকেই অবাধ্যতা, প্রতিহিংসা আর যৌন বিকৃতি দানা বাধতে সহায়তা করে শিক্ষার অধিকাংশ মাধ্যমগুলো। যত বড় হতে থাকে তার মাঝে কুশিক্ষার নগ্ন প্রকাশ ঘটতে থাকে ক্রমান্বয়ে।

  • Jagroto Jonota নভেম্বর 30, 2011 at 5:07 অপরাহ্ন

    ভাই ইকবাল ধন্যবাদ আপনাকে যে অবশেষে আপনি বুঝতে পেরেছেন যে ব্যপারটা -মূল্যবোধ পোশাক নয়। আপনার কথার প্রতি পূর্ণ সমর্থন দিয়ে আমিও বলতে চাই “ইভটিজিং বন্ধে পোশাক নয়, মূল্যবোধের পরিবর্তন প্রয়োজন”

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 5:08 অপরাহ্ন

      ধন্যবাদ। ভাই মূল্যবোধ পাল্টালে পোষাকও মূল থেকেই পাল্টে যাবে।

  • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 4:59 অপরাহ্ন

    আসুন আমরা বিদেশী ফালতু সব চ্যানেলগুলো দেখা বন্ধ করি। ফালতু প্রেমকাহিনীতে ভরা নাটক, সিনেমা, গান, বই সবকিছু বর্জন করি। এগুলোই হলো নাটের গুরু। যৌণ বিকৃতির কর্ণধার। শিল্পীদের কে জিজ্ঞেস করতে ইচ্ছে করে, অবৈধ প্রেমচর্চা ছাড়া কি শিল্প হয় না? সবাই মিলে সমগ্র জাতিকে অবৈধ প্রেম আর ভাঁড়ামি শিখাচ্ছে। হায়রে জাতির বিবেক!

  • Fahad07 নভেম্বর 30, 2011 at 4:37 অপরাহ্ন

    ডাকুআ । । । উগ্র পোশাক অবশ্য আপেক্ষিক ব্যাপার! আপনার কাছে যেটা উগ্র, অন্য জনের কাছে সেটা ভদ্র পোশাক!

    তা হলে কি আপনি শিলা কি জাওানি বা মুননি বদনাম আপনার পরিবারের সবাই কে নিয়ে (বাবা,মা,ভাই,বোন) দেখেন?

    হয়তো দেখেন.। োনেকেই দেখে না কারন আপেক্ষিক দৃষ্টিভঙ্গি |

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 4:46 অপরাহ্ন

      ভাই দেখা না দেখা ব্যাপার না। ব্যাপার হলো ঐগুলোকে আপনার বিবেক কি শ্লীল বলে নাকি অশ্লীল।

  • Jagroto Jonota নভেম্বর 30, 2011 at 4:05 অপরাহ্ন

    ভাই ইকবাল & ফরহাদ, আপনারা যে পোশাকের কথা বলছেন সেটা কিন্তু ইভটিজিং এর কারন নয়, যদি তাই হতো তাহলেতো পম্চিমা দেশ গুলোতেই ইভটিজিং বেশি হতো।আর একটি ব্যপার খেয়াল করবেন গ্রামের মেয়েরা কিন্তু পোশাকের ব্যপারে খুব সচেতন, তারপরও কেন গ্রামের মেয়েরাই বেশি ইভটিজিং এর শিকার হয়? আসলে এক্ষেত্রে দৃষ্টিভঙ্গিটাই বড় কথা। “দৃষ্টিভঙ্গি বদলান, জীবন বদলে যাবে”

    • Dakua নভেম্বর 30, 2011 at 4:26 অপরাহ্ন

      জাগ্রত জনতা/ সঠিক বলেছেন।ধন্যবাদ!

      • makased নভেম্বর 30, 2011 at 4:56 অপরাহ্ন

        sothik sikhai pare dristi bongir poriborton korte……….

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 4:28 অপরাহ্ন

      পশ্চিমা দেশগুলোতে ধর্ষনের হার যে কি রকমের ভয়াবহ তা আপনি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পত্রিকার রিপোর্ট দেখলেই বুঝতে পারবেন। আর গ্রামের মেয়েদের কথা বলছেন? সেখানে শিক্ষা না থাকার কারণে মূল্যবোধের চরম অভাব ছেলে-মেয়ে সবার মাঝে। আমি গ্রামের ছেলে। গ্রাম সম্পর্কে আমি খুব ভালভাবে জানি।

    • Fahad07 নভেম্বর 30, 2011 at 4:56 অপরাহ্ন

      ঠিক বলেছেন | তবে আমাদের দেশ তো আর পম্চিমা নয় |

      • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 5:05 অপরাহ্ন

        সেটাই তো বলছি পশ্চিমাদের পোশাকের অবস্থা যেমন খারাপ নারীদের অবস্থা ও তেমনি করুণ। আমেরিকান সেনাবাহিনীতে এমন একজন নারী সৈনিক খুজে পাওয়া যাবে না যে যৌণ হয়রানীর শিকার হয়নি।

  • afroza kawsar shiuly নভেম্বর 30, 2011 at 3:37 অপরাহ্ন

    thanks, mirza vai, ami o apnar shathe ekmot, amar mone hoy amader sobar e poribarer koishor par hoa cheleder dike ektu beshi monojog dite hobe, tader sathe poribarer sob sodosso aro ghonishtho hote hobe, sobai k aro sohonshol hote hobe, tahole tader moddhe ussringkholota ektu kombe, sei sathe sob dhoroner oporadh probonota o kombe.

    • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 3:45 অপরাহ্ন

      সবার ভিতরই একটা ভালমানুষ লুকিয়ে থাকে ; সে যত খারাপ-ই হোকনা কেন ।এ কারনেই অধিকাংশ খারাপ লোকেরা দান-খয়রাতের মাধ্যমে পাপ মোচনের চেষ্ঠা করে । তাই আমার মনে হয় একবার জুমার খুতবায় এই ব্যাপারটা বলে দেখা উচিত । মনে রাখতে হবে বাংলাদেশে প্রায় ৭০% লোক জুমার নামাযে মসজিদে যায় ।

      • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 3:59 অপরাহ্ন

        khub valo hobe emon korte parle.

    • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 3:45 অপরাহ্ন

      স্বাগতম ।। আপনার কথাটাও ঠিক ।

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 3:51 অপরাহ্ন

      apu khub sundor ekta point bolechen.

  • Dakua নভেম্বর 30, 2011 at 3:35 অপরাহ্ন

    ইকবাল/ মেয়েদেরকে ছোট করে দেখবেন না। ছেলেরাও তাই করে। মানুষ স্বভাবগত কারণেই অনুকরণ করতে পছন্দ করে। ভালো মন্দ উভয়ই হতে পারে। তবে যাতে ভালো হয় সেটা খেয়াল রাখা উচিৎ।

  • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 3:18 অপরাহ্ন

    একসময় বাঙালীদের অধিকাংশই বৈদিক এবং বুদ্ধের দর্শনে বিশ্বাস করত ।এখন ? যারা ইভটিজিং এর স্বীকার হচ্ছে তাদের ব্যাপারে কথা হচ্ছে । মেয়েদের পোষাকের একটা ভুমিকা থাকলেও অপরাধটা পুরুষদের পক্ষ থেকেই সংঘটিত হয় । কিছু কিছু পুরুষদের নৈতিকতার স্ফলনই এর জন্য দায়ী । উদাহরন স্বরুপ দেখেন আপনি যদি উগ্র সাজের কোন সুন্দরী মহিলা দেখেন তাহলে বড়জোর তার দিকে চেয়ে দেখবেন কিন্তু উচ্চস্বরে বাজে মন্তব্য করবেন না । কেউ কেউ চোখ নামিয়েও ফেলতে পারে কিন্তু ভেবে দেখেন যারা ইভটিজিং এর সাথে জড়িত থাকে বা নিজেকে কন্ট্রোল করতে পারে না তাদের কর্ম এবং আপনার কর্ম এর মধ্যে কত পার্থক্য…. এর জন্যই সামাজিক আন্দোলনের প্রয়োজন ; এখানে আঈন অসহায় । কাউকে সেক্সি বলার জন্যতো আপনি আর তাকে জেলে পুরতে পারেন না । এর জন্য আনিস স্যারের কথার সাথে আমি একমত তাই সামাজিক আন্দোলনের বিকল্প নেই এবং এতে অংশগ্রহনকারীর সংখ্যা বাড়ানোর উপরই এর সাফল্য নির্ভর করছে ।

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 3:21 অপরাহ্ন

      hmm tato must lagbei.

  • jeba islam নভেম্বর 30, 2011 at 2:57 অপরাহ্ন

    Biva,u r right.Vai Iqbal,valo dress pora meyera ki teasing er shikar hossena???amito khubi simple ekta meye but jokhoni baire ber hoi valo valo seleder valo valo montobbo sune monta khub kharap hoye jae.Mene nissi sobkisu,voe pai Ode.Jodi mene na nei tahole hoeto amar MA,amar BABA okale jibon debe-ae vebe chup kore sob sune jai Bobar moto.Ektu vebe dekhben meyeder hoye.

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 3:03 অপরাহ্ন

      apu ami to oshikar korchi na je ora oporadhi. saddho thakle shobgulu ke sat ghater pani khawatam. kintu apu vebe dekhun age to emon chilo na. ekhon emon hocche keno? media, golpo, uponnash, kobita, gan, natok, cinema shob kichui to shoitani ke uchke dei. Valo hober poth dekhai ki keo? Oderke omanush baniyeche ai somaj. ekhon somajer matha gulu sob e bikrito ruchir. Era misti misti kotha diye puro jubo somaj ke dhongsho kore phelche. Taslima nasrin erokom oneker mukhosh ummochon kore diyechen. hoito apni porechen.

    • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 3:25 অপরাহ্ন

      আপনি দেখতে কেমন এটা ইভটিজিং এর কারন নয় । ইভটিজিং এর কারন হল ক্রিমিনাল মাইন্ড । তাদের ভিতর যখন লজ্জার অনুভূতি জাগবে তখন স্বাভাবিকভাবেই এটা বন্ধ হয়ে যাবে ।

      • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 3:29 অপরাহ্ন

        hmm eta ekta birat factor. lojja.

    • sapamzad2115@gmail.com ডিসেম্বর 10, 2011 at 12:59 অপরাহ্ন

      Jeba,ami jani bodro mukhoser araley amader ruchihin seleder teasing er sikar hoy apnar moto amar o bon.amader protibad korar notun upay khujte hobe.

  • mirza নভেম্বর 30, 2011 at 2:48 অপরাহ্ন

    অযোগ্য ইমাম সাহবেদের ফতোয়া দেওয়ার মানসিকতার জন্যতো অন্য সবাইকে হেয় করা যায় না ।শহর-বন্দরের ইমামেরা অনেক মডারেট তাদেরকে কাজে লাগানো যায় কিনা ভেবে দেখা দরকার । জুমার নামাজে প্রায় বাংলাদেশর ৭০% মানুষই উপস্থিত থাকে সেই হিসেবে ইমামদের দ্বারা একটা লিখিত সার্কুলেশন প্রচার করা হলে অনেক দ্রুত এবং কম খরচে প্রচারনা করা সম্ভব ।

    • বদলে যাও বদলে দাও নভেম্বর 30, 2011 at 3:22 অপরাহ্ন

      ভালো ইমামদের সংখ্যা খুব নগন্য। তাদেরতো খারাপ কিছু বলা হয় নাই। কিন্তু এই মহান ইমাদের খুজে বের করবে কে? আপনি দায়িত্ব নিয়ে দেখান। প্রমান করুন , তাদের তালিকা প্রকাশ করুন । মসজিদ শুধু ইমামদের বয়ানের জায়গানা। ইসলামের দৃষ্টিতে সামাজিক প্রতিষ্ঠান। ওখানে সমাজের শ্রদ্ধাভাজনদের বয়ানও তো দিতে পারে। আমাদের ইমামরা ভুলে যায় প্রথম ইসলাম ধর্মগ্রহন করেছেন যিনি একজন নারী। বাঙলাদেশে নারী নিযাতন প্রতিরোধে ইমাম সমাজ বড় কোন ভূমিকা রেখেছে তার কোন সংবাদ আমাদের নজরে পড়ে নাই। যা কিছু করে দেশের বিকেবান সাধারন মানুষরাই। প্লীজ! এ বিষয়টি নিয়ে আর কেউ না লিখলে খুশি হব।

    • emrulbd নভেম্বর 30, 2011 at 6:29 অপরাহ্ন

      একমত

  • biva নভেম্বর 30, 2011 at 2:33 অপরাহ্ন

    iqbal sry to say bt apnr cmnt pore ami hotash..potita der exmple kn tanchen ekhane(potita der kara use kre vebe dkhben..potita kn gali dear element na)?ar cinemate nayikader dress to apnio dekhen tai na?kichu meyeder baje drs up r jnne apni sob meyeder evabe inslt krte parenna..pls age nijer thoughts change kroun..apnr ktha shune mne hcche meyeder jnnei eveteasing hoi..

    • iqbal নভেম্বর 30, 2011 at 2:43 অপরাহ্ন

      na ami ta muteo bolte chaini. jara oporadhi tara to oporadhi e. but onnotomo karon hishebe eshob bola. dhorun somaje chorer upodrob ar apni dorja khola rekhe ghumalen eta ki thik hobe? chor holo oporadhi se to churi korbei. tai bole apni ghorer dorja khola rakhben?

  • Dakua নভেম্বর 30, 2011 at 2:07 অপরাহ্ন

    ফাহাদ/ আপনার বক্তব্য সম্পূর্ণ সঠিক নয়! বরং মেয়েরা নিজেকে আকর্ষণীয়/সুন্দর করার জন্য সুন্দর পোশাক পরে। উগ্র পোশাক অবশ্য আপেক্ষিক ব্যাপার! আপনার কাছে যেটা উগ্র, অন্য জনের কাছে সেটা ভদ্র পোশাক!

  • Fahad07 নভেম্বর 30, 2011 at 1:59 অপরাহ্ন

    ছেলেদের আকর্ষিত করাই মেয়েদের উগরো পোশাক পরার সব চেয়ে বড় কারন

  • Engl নভেম্বর 30, 2011 at 1:05 অপরাহ্ন

    বিশ্বাস করুন, বাংলাদেশের ইমাম সাহেবদের জ্ঞান খুবই সীমিত এবং ধর্ম সম্পর্কেও তাদের জ্ঞান নামাজ পড়ানোর মধ্যেই সীমাবদ্ধ। তাই ইমামদের ইনভল্ভ করলে লাভ হওয়ার থেকে লোকসান হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

    • shakila নভেম্বর 30, 2011 at 5:51 অপরাহ্ন

      Bisshas karlam na. Imam mane neta.Netar gayan simito hate parena.Are simito gayaner lokke kono samaj neta nirbachon karte pare na.

  • বদলে যাও বদলে দাও নভেম্বর 30, 2011 at 12:35 অপরাহ্ন

    ধন্যবাদ । ভালো লিখেছেন। আসলে মেয়েরা কি পোশাক পড়লো ছেলেরা এটা নিয়ে গবেষণা না করলেই তো ভালো হয়। ছেলেরা কি পড়ে ঘুরে বেড়ায় সেটা নিয়ে মেয়েরা কি গবেষণা করে? সেটা নিয়ে টিজ করে? আর ইমাম সাহেবদের ইনভল্ব করলে আরো ভেজাল লেগে যাবে না? উনারাতো সুযোগ পেলেই ফতোয়া দিয়ে দিবে! তারাতো আউলা লাগানোর ওস্তাদ‍!

    • sazal00 নভেম্বর 30, 2011 at 1:19 অপরাহ্ন

      Apnar sathe akmot hote parlam na. Chele R Mey der posak k akchokhe dekhle hobe na. As a muslim amader obossoi jana dorkar j mey der ki posak pore baire jaoa uchit. Akta khubi simple udahoron dite chai…. 1jon chele jodi khali gae ghure berai tahole ki mey ra tar upor jhapai porbe????? But same kaj jodi 1jon Mey kore tahole ki hobe?????? so (আসলে মেয়েরা কি পোশাক পড়লো ছেলেরা এটা নিয়ে গবেষণা না করলেই তো ভালো হয়।) ai kothata thik na. tnks

      • pother manush নভেম্বর 30, 2011 at 1:27 অপরাহ্ন

        sazal i agree wid u

© বদলে যাও, বদলে দাও!